Basic Info BD https://www.basicinfobd.com/2021/12/about-me.html

৬টি ধাপে লিখুন আপনার ব্লগের জন্য About Me পেইজ

 



আপনি পছন্দ করেন বা না করেন About Me পেইজটি আপনার ব্লগের জন্য একটি অখ্যাত হিরো। এটা শুধু আপনার পাঠককে আপনার কন্টেন্ট এর প্রয়োজনীয়তাই ব্যাখ্যা করবেনা । এটা আরো বেশি সুবিধা দিবে।  এই কন্টেন্টের মাধ্যমে আপনাকে আপনার ব্লগের জন্য আকর্ষনীয় About Me পেইজ লিখতে সাহায্য করবে যা আপনার পাঠক খুব পছন্দ করবে এবং আপনাকে অনেক দিন মনে রাখবে। 

চলুন তাহলে শুরু করা যাক –

About Me পেইজ এর জন্য ৬টি সফল ধাপ –

১। একটি মারাত্নক হেডলাইন

২। আকর্ষনীয় প্যারাগ্রাফ

৩। সুন্দর পরিচ্ছন্ন প্রোফাইল ইমেইজ

৪। পরিচিতি

৫। সামাজিক প্রমাণাদি

৬। কল টু অ্যাকশন যুক্ত করুন

চলুন তাহলে শুরু করা যাক।

১। একটি মারাত্নক হেডলাইন

হেডলাইন হলো এমন একটি জিনিস যা আপনার পাঠক About Me পেইজে প্রথমে পড়বে। এইজন্য আপনার হেডলাইনটি খুব আকর্ষনীয় হওয়া উচিত। এর জন্য আপনাকে আপনার পেইজে যা করতে হবে-

১।  ব্যক্তিত্ব দেখান – 

আপনার পেইজটি পাঠকদের ভিজিট করাই হলো এটার উদ্দেশ্য। আপনার পেইজটি অন্যদের থেকে আলাদা কিনা তা নির্ধারন করবে আপনার ভংগি এবং স্টাইল।

২। আপনি কিসে ভালো সেটা জানুন -  

হেডলাইন লেখার জন্য আপনার অভিজ্ঞতা এবং জ্ঞান ব্যবহার করুন।

৩। আপনি যে সমস্যাটি সমাধান করছেন তা ঠিক করুন – 

আপনার পাঠকের সমস্যার পয়েন্ট খুঁজে বের করুন এবং সেই অনুযায়ী কাজ করুন।

একটা দারুণ হেডলাইনের উদাহারণ হিসেবে নিচে একটি উদাহারণ দেয়া হলো যা CopyHackers থেকে নেওয়া।  


২। আকর্ষনীয় প্যারাগ্রাফ 

আপনার পাঠকদেরতো হেডলাইন দিয়ে আকৃষ্ট করলনে। এবার?  আপনি চাইলে হেডলাইনের নিচে ছোট একটি প্যারাগ্রাফ দিতে পারেন যা আপনার পাঠককে আরো বেশি আকৃষ্ট করবে আপনার ব্লগের প্রতি।  অনেক সময় দেখা যায় যে হেডলাইনের নিচে আরো একটি প্যারাগ্রাফ দেয়া মানে অপ্রয়োজনীয় । কিন্তু তারপরেও  এটাতে আপনার সম্পর্কে এবং আপনার পাঠককে পুরো ব্লগে কি আছে তার একটি ছোট ধারনা দিলে পাঠককে ব্লগটির প্রতি টানবে। 

আইডিয়া পাওয়ার জন্য নিচে একটা উদাহারণ দেয়া হলো যা Creative Revolt থেকে নেওয়া হয়েছে। 


৩। সুন্দর পরিচ্ছন্ন প্রোফাইল ইমেইজ 

আপনার ব্লগে যদি নিজের একটি ইমেইজ থাকে তাহলে প্রোফাইলটির মূল্য আরো বাড়বে। এতে মানুষ বুঝবে প্রোফাইলটি ফেইক না। আপনি যে ইমেইজটি ব্যবহার করবেন সেটা অবশ্যই যেন উচ্চ রেজুলেশন সম্পন্ন হয়। সবচেয়ে ভালো হয় আপনি যদি একজন ভালো ফটোগ্রাফার ভাড়া করে আপনার প্রয়োজনমত ছবি তুলে নিন।


ইমেইজটি যেন সর্বনিম্ন ১০ মেগাফিক্সেল হয়। যখন ছবি তুলবেন তখন কিছু জিনিস মাথায় রাখবেন । যেমন –

১। নিজের মত হোন –

আপনি সবসময় যেমন থাকেন তেমন তাহাক্র চেষ্টা করবেন । অতিরিক্ত ড্রেসাপ করার প্রয়োজন নেই । 

২। ছবি যেন কথা বলে – 

আপনার কোনো ক্যাপশন দেওয়ার প্রয়োজন নেই।

৩।হাসুন – 

একটা রিপোর্ট অনুযায়ী , আপনার হাসি আপনার ছবির ১০গুন সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে।

আপনার সুবিধার জন্য একটি ইমেইজ নিচে দেয়া হলো  যা Jeff Bulla’s এর পেইজ থেকে নেওয়া হয়েছে। 


৪। পরিচিতি – 

এতক্ষন ধরে আপনি যা করলেন সব ছিল পাঠককে আকৃষ্ট করার জন্য । এখন সময় হলো আপনার নিজের পরিচয় দেওয়ার । এখানে About Me পেইজ টি আপনার পরিচয় দিতে ব্যবহার করুন। যেমন-

আপনি যা করছেন কেন করছেন?

আপনাকে এজন্য আপনার বাস্তব জীবনে ফিরে যেতে হবে।  কিছু টিপস –

১।স্বাভাবিক থাকুন

২। আপনার জীবনের কষ্টের দিকে তুলে ধরুন

একটা সুন্দর পরিচিতি আপনাদের সুবিধার জন্য Spencer Haws এর প্রোফাইল থেকে নেওয়া হলো ।


৫। সামাজিক প্রমাণিদি

সামাইক প্রমাণিদি বিভিন্ন গঠন এবং আকারের হয়ে থাকে। কিন্তু নতুন ব্লগারদের নিচে দুইটি উপায় দেওয়া হলো যা আপনার পেইজের জন্য সুবিধার হবে। 

১। কোথাও ফিচার হয়ে থাকলে-

আপনি যদি ভালো কোনো পাবলিকেশনে লিখে থাকেন তাহলে উল্লেখ করুন । যেমন – Forbes, Entrepreneur, Social Media Examiner। এই সাইটগুলো যেকোন লেখা অথবা কন্টেন্ট পাবলিশ হয়না। যাইহোক এসব সাইটে কোনো ফিচার পাবলিশ হয়ে থাকলে এটা আপনার সারা দুনিয়াকে জানানো উচিত।  আপনাদের সুবিধার জন্য একটি উদাহারণ দেয়া হলো যা Stuart Walkers  এর প্রোফাইল থেকে নেওয়া।


২। প্রশংসাপত্র-

আপনার পাঠকদের থেকে প্রশংসাপত্র নিন ।পাঠকদের থেকে আপনার ব্লগ কেমন লাগছে তা জানুন। Stuart’s About Me Page থেকে একটি উদাহারন নিচে দেওয়া হলো ।


৬। কল টু অ্যাকশন যুক্ত করুন-

আপনি একবার পাঠকদের মধেয় জনপ্রিয় অয়ে গেলে এবার আপনার কাজ হলো এবার পাঠকদের থেকে কিছু পাওয়া। বিভিন্নরকমের কলস টু অ্যাকশন রয়েছে । একেকজন ব্লগার এককেরকম ব্যবহার করে। কিছু কমন ধাপ হলো –

১। আপনার লিস্টটি সাবস্ক্রাইভ করতে বলুন 

২। বাটন তৈরি করুন

উপসংহার 

পরিশেষে, আপনার About Me পেইজ  আপনাকে নিয়েই হওয়া উচিত। আপনার পার্সোনাল লাইফ মানুষের সাথে শেয়ার করলে আপনি একজন ভালো ব্লগার হতে পারবেন। এবং পাঠকরা যদি পছন্দ করে আপনার ব্লগ তাহলে তারা আপনার ফলোয়ারস এবং সবাস্ক্রাইভ হবে যতদিন আপনি তাদেরকে চান।  যাইহোক এসব কিছুই সম্ভব যদি আপনি উপরোক্ত টিপ্সগুলো ঠিকাভবে ফলো করেন। আশা করি আপনাদের সবার ভালো লেগেছে এই কন্টেন্টটি। যদি কারো কিছু জানার থাকে তাহল অবশ্যই কমেন্ট সেকশনে জানাবেন।  

এই কন্টেন্টের সব ছবি এই লিঙ্ক থেকে নেওয়া হয়েছে। 




অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

নটিফিকেশন