Basic Info BD https://www.basicinfobd.com/2021/12/blog-post_5.html

গেস্ট ব্লগিংঃ নতুনদের জন্য আল্টিমেট গাইডলাইন

 


হয়ত আপনার একটি দারুন ওয়েবসাইট আছে যা পাঠকদের কাছে পৌছাতে চান। কিন্তু মাঝে মাঝে তাদের কাছে পৌছানোর সেরা উপায় হল অন্য সাইটের জন্য আর্টিকেল লেখা। এই পোস্টে গেস্ট ব্লগিং এর সকল বিষয় আলোচনা করা হবে এবং কিভাবে তা দিয়ে নিজের সুবিধা আদায় করতে পারবেন দেখানো হবে।

গেস্ট ব্লগিং কি?

সহজ ভাষায় বললে গেস্ট ব্লগিং হল অন্য ওয়েবসাইটের জন্য কন্টেন্ট লেখা। এটা হয়ত আপনার কাছে উলটা ঠেকতে পারে যে আপনি তো আসলে চান পাঠক আপনার ওয়েবসাইটে আসুক, অন্যের সাইটে নয়। তবে বেশ কিছু কারণ রয়েছে কেন আপনি গেস্ট ব্লগিং করবেন। 

১। আপনার ওয়েবসাইটে পাবেন অসংখ্য অর্গানিক ট্রাফিক

গেস্ট ব্লগিং এর মাধ্যমে আপনি অনলাইন অস্তিত্বের জানান দিতে পারবেন। এভাবে আপনার নিজের ওয়েবসাইটে ট্রাফিক নিয়ে আসতে পারবেন। 

২। হায়ার সার্চ র‍্যাঙ্কিং এর সাথে সাথে আরো বেশি ট্রাফিক পান

গেস্ট ব্লগিং হল এসইও এর জন্য অন্যতম একটা উপাদান। কোন ওয়েবসাইটের দিকে যত বেশি লিঙ্ক নির্দেশ করে, ওয়েবসাইটটি সার্চ ইঞ্জিনের চোখে তত বেশি জনপ্রিয় হয়।

গেস্ট ব্লগিং এর মাধ্যমে কিভাবে উপার্জন করবেন?

গেস্ট ব্লগিং এর মাধ্যমে আপনি যে কেবল আপনার ওয়েবসাইটের ট্রাফিক বাড়াবেন এবং এসইও তে ভাল র‍্যাংক করবেন তা ই না, আপনি এর মাধ্যমে অর্থ উপার্জনও করতে পারেন। নিচে দুইটি উপায় দেওয়া হলঃ 

১। যেসব ওয়েবসাইটে গেস্ট পোস্টের বিনিময়ে পেমেন্ট দেয় সেসব ওয়েবসাইটে লেখা শুরু করুনঃ

বিশ্বাস করুন আর না ই করুন, অসংখ্য ওয়েবসাইট রয়েছে যেখানে আপনি লেখার বিনিময়ে টাকা পাবেন। উদাহরণ হিসেবে EatingWell এর কথা বলা যায় যা শব্দপ্রতি ১ ডলার পর্যন্ত দেয়। 

২। আপনার সেল পেজে ট্রাফিক নিয়ে আসার মাধ্যমেঃ

আপনি ঠিকঠাকমত ওয়েবসাইট পছন্দ করে গেস্ট পোস্ট লিখতে পারলে আপনার প্রোডাক্ট/সার্ভিসের দিকে অনেকজনকেই আকৃষ্ট করতে পারেন।

গেস্ট ব্লগিং সাইট কিভাবে খুঁজবেন?

ধাপ-১: গুগল ব্যবহার করুন

একটা সহজ উপায় হল গুগলে গিয়ে সার্চ দিন “guest post” কিওয়ার্ডগুলো লিখে, উদ্ধৃতি চিহ্ন সহ। অনেক সময় ‘inurl:’ এই অপারেটরটি আপনার টার্গেট কিওয়ার্ড এর আগে ব্যবহার করতে পারেন।



ধাপ-২:  Link Research SEO Toolbar ব্যবহার করুন

Link Research SEO Toolbar এই টুলের মাধ্যমে আপনি যেকোন ওয়েবসাইটের জনপ্রিয়তা, ডোমেন রেটিং, ব্যাকলিংকের সংখ্যা ইত্যাদি প্রয়োজনীয় তথ্য পেতে পারেন। এর ফলে আপনার লেখা ভাল কোন ওয়েবসাইটে যাচ্ছে কিনা বা অনেক বেশি পাঠকের নজরে পড়বে কি না তা নিশ্চিত করতে পারবেন। 



ধাপ-৩: আপনার প্রতিদ্বন্দ্বীর ব্যাকলিংকের সোর্স খেয়াল করুন

কোন সাইটগুলো গেস্ট পোস্ট এপ্রুভ করে তা খোঁজার আরেকটি ভাল উপায় হল আপনার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বীদের ব্যাকলিংক প্রোফাইল সম্পর্কে ভালমত জানা। SEMrush হল এমন একটি যা আপনার প্রতিদ্বন্দ্বীর অগোচরেই তার বেশ কিছু তথ্য জানাতে আপনাকে সাহায্য করবে। 



ধাপ-৪: একটা মারাত্নক গেস্ট ব্লগিং পিচ লিখুন

আপনাকে কেন অন্য ওয়েবসাইট সেখানে লেখার ব্যাপারে সম্মতি দিবে? এজন্য স্মার্ট হোন, অন্যদের চেয়ে আলাদা হোন। গেস্ট পোস্টে এপ্লাই করার জন্য দারুন একটা গেস্ট ব্লগিং পিচ লিখুন, যাতে আপনাকে ফিরাতে না পারে।   

কিভাবে আপনার গেস্ট পোস্ট এপ্রুভ করবেন?

১। ভিজুয়াল কন্টেন্টের ব্যবহার বাড়ান

স্ক্রিনশট, ইনফোগ্রাফিক বা শর্ট এনিমেশন – এমনকি মিম – যাই হোক না কেন, আপনার পোস্টের সাথে প্রাসঙ্গিক হলে অবশ্যই ব্যবহার করুন। ভিজুয়াল কন্টেন্ট আপনার পোস্টের গ্রহণযোগ্যতা অনেক বাড়িয়ে তোলে। যেমন নিচে দেখুন আমার লং টেল কিওয়ার্ডের উপর একটি পোস্টের অংশবিশেষঃ 



আপনি নিচের টুলগুলো ব্যবহার করতে পারেন ভিজুয়াল কন্টেন্ট তৈরীর জন্যঃ

Canva: ইনফোগ্রাফিক, ব্লগ হেডার ইত্যাদি তৈরীর জন্য 

Jing and Evernote Skitch: স্ক্রিনশটের উপর কোন কিছু আঁকানো বা লেখা 

Pixabay and Pexels: স্টক ফটোর জন্য 

Fiverr: কম খরচে ফ্রিল্যান্স গ্রাফিক ডিজাইনার ভাড়া করতে 

২। বিভিন্ন প্রুফরিডিং টুল ব্যবহার করে আপনার কন্টেন্টকে আরো সুন্দর করুন

আপনার পোস্ট যদি হয় ভুলে ভরা তাহলে নিশ্চয় সেই পোস্ট তার গ্রহণযোগ্যতা হারাবে। কেউ কি চায় ভুলে ভরা পোস্ট পড়তে। তাই পোস্ট ভালভাবে প্রুফরিডিং করুন। বিভিন্ন ফ্রি প্রুফরিডিং টুল রয়েছে। আপনি Grammarly ব্যবহার করে দেখতে পারেন। 

৩। আপনার ওয়েবসাইটে ইন্টারনাল লিংক ব্যবহারের মাধ্যমে ট্রাফিক বাড়ান

যেসব ওয়েবসাইটে গেস্ট পোস্ট লিখবেন তারা কিন্তু নিজেদের এসইও এর ব্যাপারেও যত্নশীল থাকে। তাই আপনি যদি আপনার পোস্টে কিছু ইন্টারনাল লিংক সংযুক্ত করতে পারেন তবে তারাও বেশ পছন্দ করে। 

কিভাবে আপনার গেস্ট পোস্ট প্রমোট করবেন?

১। আপনার ইমেইল সাবস্ক্রাইবারদের ব্যবহার করুন

২। আপনার পাঠকদের গেস্ট পোস্টের একটা পোর্টফলিওর মাধ্যমে আকর্ষণ করুন

৩। আপনার গেস্ট পোস্টে ব্যাকলিংক ব্যবহার করুন

৪। সোশ্যাল মিডিয়াকে ব্যবহার করুন

৫। কমেন্টের উত্তর করুন নিয়মিত

গেস্ট ব্লগিংঃ কি করবেন আর কি করবেন না

লিংক ব্যবহারঃ

আপনার সাইটে এমন কিছু ব্যাকলিংক যুক্ত করুন যা পাঠকের এক্সপেরিয়েন্স বাড়াতে সাহায্য করবে। জোর করে কোন ব্যাকলিংক ব্যবহার করবেন না যা অপ্রয়োজনীয়।

গেস্ট ব্লগিং এর মাধ্যমে অর্থ উপার্জনঃ

এমন ওয়েবসাইট খুঁজুন যেখানে গেস্ট পোস্ট লেখার মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। অথবা আপনার সেল পেজে ট্রাফিক আনার একটা রাস্তা তৈরী করে দিবে। কিন্তু অন্য কোন ব্র্যান্ডের ব্যাকলিংক  আপনার গেস্ট পোস্টে বিক্রি করে অর্থ উপার্জনের চেষ্টা করবেন না।

সঠিক সাইট খোঁজা 

এমন ওয়েবসাইট খুঁজুন যার ফলে আসলেই ট্রাফিক পাবেন। যে ওয়েবসাইটে গেস্ট পোস্ট লিখে ট্রাফিক পাওয়ার সম্ভাবনা তা পরিহার করুন।

ইমেইল

কোন টেমপ্লেট ইমেইল ব্যবহার না করে নিজের মত করে ইমেইল লিখুন এবং সম্পর্ক গঠনে জোর দিন।

গেস্ট পোস্ট লেখা

ওয়েবসাইটের পাঠকদের কথা চিন্তা করে এবং সাইটের নীতিমালা মেনে পোস্ট লিখুন। নিম্নমানের পোস্ট লিখবেন না।

গেস্ট পোস্ট প্রমোট করা

আপনার ফলোয়ার, সাবস্ক্রাইবার এবং ওয়েবসাইটের পাঠকদের সাথে যোগাযোগ অব্যাহত রাখুন। কোন পাবলিশিং ওয়েবসাইটের হাতে আপনার গেস্ট পোস্টের প্রমোশন ছেড়ে দিবেন না।

তাহলে এখুনি ব্লগিং শুরু করে দিন। আশা করি এই গাইডলাইনটির মাধ্যমে আপনারা গেস্ট পোস্ট এর ব্যাপারে খুঁটিনাটি জানতে পেরেছেন। কোন জিজ্ঞাসা থাকলে কমেন্টবক্সে জানাতে ভুলবেন না।  

সব ছবি এই লিঙ্ক থেকে নেয়া হয়েছে।  

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

নটিফিকেশন