Basic Info BD https://www.basicinfobd.com/2021/12/seo.html

ইমেজ অপ্টিমাইজেশন ১০১ – SEO এর জন্য ব্লগ পেজের ছবি অপ্টিমাইজ

  


এই আর্টিকেলে আপনি SEO এর জন্য ইমেজ অপ্টিমাইজেশন নিয়ে সবকিছু শিখবেন।  

কেনো আপনার ছবি  অপ্টিমাইজ করা প্রয়োজন? 

ইমেজ অপ্টিমাইজিং করার অনেক কারণ রয়েছে। আপনি যে ছবিটি SEO স্কোর বাড়ানোর জন্য ব্যবহার করবেন সেটি আপনার ব্লগের  পেজ লোডিং স্পিড এর জন্যও অনেক বড় ভূমিকা পালন করে। 

ইমেজ অপ্টিমাইজেশনের সুবিধা

১। ফটো শেয়ারিং সাইট যেমন – পিন্টারেস্ট আপনাকে অনেক ট্রাফিক এনে দিতে পারে।

২। ফটো সার্চ ইঞ্জিনে দেখা যাবে এবং ছবি  সেকশনে কম্পিটিশন কম হওয়ায় আপনি খুব সহজে প্রোপার অপ্টিমাইজেশনের কারনে উচ্চ র্যাঙ্কে অবস্থান নিতে পারবেন। 

৩। আপনার ব্লগের বাউন্স রেট এবং SEO স্কোর বাড়ায়

৪। আপনি যদি কাস্টম ছবি  তৈরি করেন তাহলে অন্য ব্লগ যদি আপনার ছবি ব্যবহার করে তখন আপনি তাদের কাছে ব্যাকলিঙ্ক আশা করতে পারেন

আপনার ব্লগের জন্য সঠিক ছবি খুঁজুন

আমরা সবাই আমাদের আর্টিকেলের জন্য ছবি  খুঁজি । আপনি যখন ছবির সাথে ডিল করবেন তখন ছবি খোঁজা নিয়ে আপনাকে সতর্ক হতে হবে । আপনি গুগল থেকে যেকোন ছবি ডাউনলোড করতে পারবেন না এবং যেকোন ছবি ব্যবহার করতে পারবেন না কেননা এই ছবি গুলো কপিরাইট নীতিমালার আওতাধীন। এসব ছবি ব্যবহার করার কারনে পরবর্তীতে আপনারা বিপদের সম্মুখীন হতে পারেন। বিভিন্নরকমের ওয়েবসাইট রয়েছে যা ফ্রিতে ছবি প্রদান করে। আপনি সেসব ওয়েবসাইতে আপনার পছন্দের ছবিটি খুঁজতে পারেন। 


আপনি নিজেই ছবি তৈরি করুন

বেশিরভাগ সময়ে আপনি স্টক ফটো সাইটে আপনার পছন্দের ছবিটি পেয়ে যাবেন। তবে যদি কোনো কারণে ছবি না মিলে সেক্ষেত্রে আপনি নিজেই নিজের কাস্টম ছবি তৈরি করতে পারেন । এজন্য  আপনি অনলাইন সাইটও ব্যবহার করতে পারেন যেমন – Canva। এটি একটি সেরা প্ল্যাটফরম । বিশেষ করে কাস্টম ছবি তৈরি করার জন্য। 


সার্চ ইঞ্জিনের জন্য কিভাবে ইমেজ অপ্টিমাইজ করবেন ?

১। সঠিক ফাইল নাম পছন্দ করুন

নতুন ছবি আপলোড দেয়ার আগে আপনাকে ছবিটির নাম চেক করতে হবে। এতে করে আপনার পাঠক এবং সার্চ ইঞ্জিন দুইটিই উপকৃত হবে।  

২। ছবি  সাইজ এবং কম্প্রেশন

এরপর আপনাকে যা খেয়াল রাখতে হবে তা হলো ছবি আপলোড দেয়ার আগে আপনাকে ফাইল সাইজ এবং ডাইমেনশনটা চেক করতে হবে। আপনাকে আপনার আর্টিকেলের জন্য বড় ছবি  আপলোড দেয়ার প্রয়োজন নেয় । কেননা এতে করে আপনার সার্ভারে অনেক লোড পড়বে এবন এর ফলে আপনার লোডিং স্পিড ও বেড়ে যাবে।  ছবি  সাইজ মিনিমাম ২০০×২০০ পিক্সেল হওয়া উচিৎ।


৩। ALT Text 

এটার আসল উদ্দেশ্য হলো ছবি  ফাইলের একটি ডেস্ক্রিপশন প্রদান করা। আরেকটি কারণ হলো সার্চ ইঞ্জিনকে বলা যে ছবি টি ঠিক জায়গায় রয়েছে। 

কিছু জিনিস মনে রাখা প্রয়োজন

১। ছবির উচ্চতা এবং প্রস্থ

ছবি  অপ্টিমাইজেশনে উচ্চতা এবং প্রস্থ প্রয়োজনীয় প্যারামিটারগুলোর মধ্যে অন্যতম। আপনি যখনই আপনার আর্টিকেলে ছবি  প্রবেশ করাবেন তখন নিশ্চিত করুন যাতে HTML কোডে উচ্চতা এবং প্রস্থ থাকে । এটা থাকা জরুরী কারন এটা  লোডিং স্পিডে অনেক বড় ভূমিকা পালন করে।   


২। ছবি  থেকে হাইপারলিঙ্ক মুছে ফেলুন

আপনি যখন ছবি আপলোড করবেন তখন ওয়ার্ডপ্রেস অটোমেটিক্যালি ইমেজ লোকেশনের সোর্স কোডে একটি লিঙ্ক অ্যাড করবে । আপনি যদি ফুল সাইজ ছবি  শেয়ার করেন তাহলে আপনার ছবিতে হাইপারলিঙ্কটি রাখা উচিৎ।  


ইমেজ অপ্টিমাইজ করার সেরা কিছু চর্চা

১। ছবি  ফরম্যাট – JPEG, PNG, GIF কোনটিতে রাখবেন?

JPEG ফরম্যাট – ডিজিটাল ফটোগ্রাফির জন্য সেরা ফরম্যাট এবং সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত ফরম্যাট।

PNG ফরম্যাট – এই ফরম্যাট অসাধারণ কম্প্রেসন সুবিধা দেয় কোয়ালিটির কোন ক্ষতি না করেই।

GIF ফরম্যাট -  এই ফরম্যাটের জনপ্রিয়তার প্রধান কারণ এটি ছোট ছোট সাইজের ছবি সাপোর্ট করে।

এই ফরম্যাটগুলোর মধ্যে সর্বোত্তম হল JPEG ফরম্যাট। এর ফলে ছবির সাইজ কম থাকে এবং সাইট লোডও হয় অনেক দ্রুত। 

২। ইমেজে ক্যাপশন ব্যবহার করুন 

ইমেজ ক্যাপশন যদি বুদ্ধিদীপ্ত হয় তবে তা পাঠকের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে সক্ষম হয়। এর ফলে পাঠক বেশি সময় ওয়েবসাইটে অবস্থান করবে। ফলশ্রুতিতে বাউন্স রেট কমবে , এসইও স্কোর বাড়বে এবং আপনার ছবির সার্চ ইঞ্জিনের রেজাল্টের শুরুর দিকে থাকার সম্ভাবনা বাড়বে।  

৩। ইমেজ সাইটম্যাপ  ব্যবহার করুন। 

এর ফলে আপনি সার্চ ইঞ্জিনকে জানান দিবেন যে আরো নতুন পেজ আছে যেগুলো ইনডেক্সে আনতে হবে। আপনি যদি ফটোগ্রাফি ব্লগ চালান তাহলে একটি ইমেজ সাইটম্যাপ তৈরি করা খুব ভালো আইডিয়া হবে ।

আরো ভালো ইমেজ অপ্টিমাইজেশনের জন্য WP প্লাগইনস

ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগইনস ডিরেক্টরি এবং কালেকশনে  অনেক চমৎকার SEO প্লাগইনস রয়েছে যা  আপনার ব্লগের ইমেজ অপ্টিমাইজেশনের জন্য সাহায্য করবে। নিচে কয়েকটির বর্ণনা দেওয়া হলঃ

১। SEO Friendly Images

এটা এপর্যন্ত সার্চ ইঞ্জিনে জন্য ইমেজ অপ্টিমাইজেশনের সেরা প্লাগইন। আপনার যদি ওয়েবসাইটে অসংখ্য ছবি থাকে এবং আপনি টাইটেল ট্যাগ অথবা ALT টেক্সট যুক্ত করে না থাকেন তাহলে এই প্লাগইন আপনার সকল ছবিতে আপনার পছন্দমতো সেটিংস অনুযায়ী স্বয়ংক্রিয়ভাবে ট্যাগ যুক্ত করে দিবে।


২। WP Smush.It or EWWW Image Optimizer

এই দুইটা প্লাগইনের যেকোন একটি আপনি আপনার ছবিগুলোর সাইজ রিডিউস করার ক্ষেত্রে ব্যবহার করতে পারেন। আর দারুন বিষয় হল এর ফলে আপনার ছবির কোয়ালিটির কোন পরিবর্তন হবে না। 


ইমেজ SEO এবং Pinterest

Pinterest হল ইন্টারনেটে ছবি শেয়ার দেওয়ার সবচেয়ে জনপ্রিয় ওয়েবসাইট। তাই আপনি অনেক ছবি ব্যবহার করলে তা Pinterest শেয়ার না করা নির্বুদ্ধিতা হবে। Pinterest হলো একটা অথোরিটি ওয়েবসাইট। এখানে শেয়ার করা ইমেজের সার্চ ইঞ্জিনেরর রেজাল্টে ইনডেক্স হওয়ার এবং শুরুর দিকে থাকার ভাল সুযোগ থাকে। তবে Pinterest কিন্তু সবার জন্য নয়। আপনি এখানে ছবি শেয়ার করলেই লাভবান হবেন এমনটা নয়। Pinterest এর অধিকাংশ ব্যবহারকারী হলেন নারী এবং এখানকার প্রধান বিভাগগুলো হল home, arts/crafts, style/fashion, food, travel ইত্যাদি। তাই আপনার ওয়েবসাইট টিউটোরিয়াল বা অ্যাপনির্ভর হলে আপনি এখান থেকে তেমন সুবিধা পাবেন না। তবে শেয়ার করাই তো ক্ষতি নেই তাই না?

আশা করি ইমেজ অপ্টিমাইজেশনের খুঁটিনাটি সম্পর্কে ধারনা পেয়েছেন। এ বিষয়ে আপনার কোন প্রশ্ন থাকলে অথবা অন্য কোন আইডিয়া থাকলে কমেন্টবক্সে জানাতে ভুলবেন না। 

সব ছবি এই লিঙ্ক থেকে নেওয়া হয়েছে। 


 

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

নটিফিকেশন